বাঞ্ছারামপুরে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে দুই জনের মৃত্যু

বাঞ্চারামপুর, 10 October 2023, 475 Views,

চলারপথে রিপোর্ট :
ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বাঞ্ছারামপুরে টিনশেড ঘরে বিদ্যুতায়িত হয়ে দুই চাচাতো ভাইয়ের মৃত্যু হয়েছে। আজ ১০ অক্টোবর মঙ্গলবার দুপুরে বাঞ্ছারামপুর উপজেলার সোনারামপুর ইউনিয়নের শান্তিপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন, শান্তিপুর গ্রামের ওয়ালেক মিয়ার ছেলে আলামিন (২৬) ও তারই চাচাতো ভাই হেলু মিয়ার ছেলে টুকু মিয়া (২৫)।

স্থানীয়রা জানায়, দুপুরে বাড়ির সঙ্গে পুকুর পাড়ে পরিত্যক্ত একটি টিনশেড ঘরে প্রথমে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন টুকু মিয়া। পরে তাকে উদ্ধার করতে চাচাতো ভাই আলামিন এগিয়ে গেলে তিনিও বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন। পরে স্থানীয়রা তাদের দু’জনকে উদ্ধার করে বাঞ্ছারামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তবরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করে।

বাঞ্ছারামপুর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) তরুণ কান্তি দে বলেন, বিদ্যুস্পৃষ্ট হয়ে আলামিন ও টুকু নামে দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। তারা সম্পর্কে চাচাত ভাই। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়েছে। এই ঘটনায় প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে৷

Leave a Reply

মুগ্ধতা ছড়িয়েছে ভারতের আবৃত্তি সংস্থা শ্রুতি

চলারপথে রিপোর্ট : ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের আগরতলার বিশিষ্ট আবৃত্তি সংস্থা Read more

নবীনগরে তিন শতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ

চলারপথে রিপোর্ট : ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নবীনগর উপজেলার জিনোদপুর ইউনিয়নের বাঙ্গরা Read more

আখাউড়ায় বিদ্যুৎস্পৃষ্টে একজন নিহত

চলারপথে রিপোর্ট : ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার আখাউড়া বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে আদর আলী Read more

কোটা বিরোধী আন্দোলনের নামে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা…

চলারপথে রিপোর্ট : কোটা বিরোধী আন্দোলনের নামে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও Read more

বাঞ্ছারামপুরে বৃত্তির সনদ ও অর্থ প্রদান

চলারপথে রিপোর্ট : ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বাঞ্ছারামপুরে বাংলাদেশ কিন্ডারগার্টেন এন্ড প্রি-ক্যাডেট Read more
ফাইল ছবি

রোকেয়া হলের মেয়েদের মুখে ‘রাজাকার’ স্লোগান,…

অনলাইন ডেস্ক : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বাস্তবায়নই Read more

কোপা চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনা

অনলাইন ডেস্ক : কলম্বিয়াকে হারিয়ে ১৬ তম শিরোপা ঘরে তুলেছে Read more
ফাইল ছবি

৩০০০ বাংলাদেশি কর্মী নেবে ইউরোপের চার…

অনলাইন ডেস্ক : ইউরোপীয় ইউনিয়নের চার দেশ ইতালি, জার্মানি, গ্রিস Read more

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার ও অবৈধ পাচার…

চলারপথে রিপোর্ট : ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় জেলা প্রশাসন ও মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের Read more

ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেড ক্রিসেন্ট ইউনিট কার্যনির্বাহী কমিটির…

চলারপথে রিপোর্ট : ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেড ক্রিসেন্ট ইউনিট কার্যনির্বাহী কমিটির নির্বাচন Read more

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আওয়ামী লীগের নতুন কমিটির…

চলারপথে রিপোর্ট : ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভার ৪ নং ওয়ার্ডের পাইকপাড়া সামাজিক Read more

বিজয়নগরে সালিসি সভায় নারী নির্যাতন :…

চলারপথে রিপোর্ট : ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বিজয়নগরে চুরির অপবাদ দিয়ে সালিশ Read more

অসচ্ছল পরিবারের মাঝে মানবিক সহায়তা

বাঞ্চারামপুর, 8 November 2023, 432 Views,

চলারপথে রিপোর্ট :
বাঞ্ছারামপুরের অসচ্ছল পরিবারের মাঝে মানবিক সহায়তা প্রদানের লক্ষ্যে ৩০০ বান্ডিল ঢেউটিন, নগদ অর্থ ও শুকনো খাবারের ২০০০ প্যাকেট বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় থেকে এ বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।

জানা যায়, উপজেলার বিভিন্ন এলাকার ১৫০ পরিবারের মাঝে ২বান্ডিল করে ঢেউটিন ও প্রতিজনকে নগদ ৬ হাজার টাকা করে প্রদান করা হয়। এছাড়াও ২ হাজার শুকনো খাবার প্রদান করা হয়।

মঙ্গলবার সকালে বাঞ্ছারামপুর উপজেলা সদরে ক্যাপ্টেন এবি তাজুল ইসলাম অডিটোরিয়ামে ২০২৩-২০২৪ অর্থবছরের বাঞ্ছারামপুর উপজেলার অসচ্ছল পরিবারের মাঝে এসব খাদ্য সামগ্রী ও ঢেউটিন বিতরণ করা হয়েছে।

এতে প্রধান অতিথি ছিলেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি ক্যাপ্টেন (অব.) এবি তাজুল ইসলাম এমপি। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদেরকে নির্দেশ দিয়েছেন ব্যক্তিগত স্বার্থকে উপেক্ষা করে জনগণের কল্যাণে আত্মনিয়োগ করবে। সেই লক্ষ্যে আমরা সারা বাংলাদেশে জনগণের ভাগ্যে উন্নয়নের জন্যে কাজ করে যাচ্ছি।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন- বাঞ্ছারামপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. সিরাজুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা একি মিত্র চাকমা, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) কাজী আতিকুর রহমান, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান সাইয়েদুল ইসলাম ভূঁইয়া বকুল, পৌরসভার মেয়র তফাজ্জল হোসেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কবির হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক কাজী জাদিদ আল রহমান জনি, ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক আহাদ খোকন, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) পবিত্র চন্দ্র মণ্ডল, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মাহমুদুল হাসান ভুঁইয়া, সোনারামপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান শাহিন আহমেদ, তেজখালি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান শহীদুল হক বাবুল, দরিয়াদৌলত ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমান উজ্জ্বল, ছলিমাবাদ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান জালাল মিয়া, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সোহেল রানা, সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক প্রমুখ।

অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন উপজেলা সমবায় সহকারী পরিদর্শক সাবিহা সুলতানা।

বাঞ্ছারামপুরে পুলিশ হেফাজতে যুবককে নির্যাতনের অভিযোগ

বাঞ্চারামপুর, 23 March 2023, 904 Views,

চলারপথে রিপোর্ট :
বাঞ্ছারামপুর উপজেলায় আবদুল আহম্মদ ওরফে রুবেল (২৬) নামে এক যুবককে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে পুলিশ হেফাজতে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। ভুক্তভোগী উপজেলার সোনারামপুর ইউনিয়নের চরশিবপুর গ্রামের লিল মিয়ার ছেলে।

এ ঘটনায় দুই পুলিশ কর্মকর্তাসহ তিনজনের বিরুদ্ধে ব্রাহ্মণবাড়িয়া পুলিশ সুপার বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন আবদুল আহম্মদের মা আমেনা বেগম। ডাকযোগে পাঠানো অভিযোগটি ২২ মার্চ বুধবার দুপুরে পুলিশ সুপার কার্যালয়ে পৌঁছেছে বলে জানা গেছে৷

অভিযুক্তরা হলেন, বাঞ্ছারামপুর মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) তরুণ কান্তি দে, সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) আল-আমিন মানিক ও উপজেলার দুর্গাপুরের মধ্যপাড়ার বাসিন্দা রবি উল্লাহ।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, রবি উল্লাহ সঙ্গে আবদুল আহম্মদ ওরফে রুবেলের পরিবারের দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলছিল। এই বিরোধকে কেন্দ্র করে আবদুল আহম্মদের পরিবার রবি উল্লাহর বিরুদ্ধে আদালতে মামলাও করেছে। মামলাটি চলমান। এরই জেরে রবি উল্লাহর সঙ্গে আহম্মদের বিরোধ আরো প্রকট হয়। রবি উল্লাহ ক্ষিপ্ত হয়ে আহম্মদ ও তার পরিবারের লোকজনের ক্ষতি করার চেষ্টা করে আসছিলেন।

এরই ধারাবাহিকতায় গত ১৪ মার্চ বিকেলে রবি উল্লাহর প্ররোচনায় ও প্রত্যক্ষ সহযোগিতায় অন্যায়ভাবে বাঞ্ছারামপুর মডেল থানার এএসআই আল আমিনসহ চারজন সাদা পোশাকের পুলিশ সদস্য আবদুল আহাম্মদকে তার বাড়ি থেকে আটক করেন। থানায় নিয়ে রবি উল্লাহর কথা মতো পরিদর্শক তরুণ কান্তি দে ও এএসআই আল-আমিন দফায় দফায় লাঠি দিয়ে আবদুল আহাম্মদকে মারধর করেন। মারধরের কারণে আহাম্মদের পুরো শরীরে রক্তাক্ত জখম হয়।

আটকের ২৪ ঘণ্টার মধ্যে আব্দুলকে আদালতে না পাঠিয়ে থানায় শারীরিকভাবে নির্যাতন অব্যাহত রাখলে তার মা সংবাদ সম্মেলনের প্রস্তুতি নেন। বিষয়টি জেনে তড়িঘড়ি করে আটকের একদিন পর ১৬ মার্চ দুপুরের দিকে আবদুলকে একটি মিথ্যা মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে পাঠায় পুলিশ।

সেখানে আব্দুলের শরীরের জখম দেখে আদালতের পুলিশ সদস্যরা তাকে গ্রহণ না করে চিকিৎসার পরামর্শ দেন। সেসময় আদালত থেকে আবদুলকে জেনারেল হাসপাতাল ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে তাকে পুনরায় আদালতে নেওয়া হয়। পরে আদালত তাকে জেলা কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

এই ঘটনায় গত ১৯ মার্চ রবিবার নির্যাতন ও হেফাজতে মৃত্যু নিবারণ আইনে তাদের তিনজনকে আসামি করে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা ও দায়রা জজ আদালতে আহাম্মদের মা আমেনা বেগম বাদী হয়ে অভিযোগ দেন। পরদিন ২০ মার্চ সোমবার জেলা ও দায়রা জজ শারমিন নিগার মামলাটি খারিজ করে দিয়ে এ বিষয়ে পুলিশ সুপারকে জানানোর সুযোগ রয়েছে উল্লেখ করে কিছু নির্দেশনা দেন। এরই পরিপ্রেক্ষিতে পুলিশ সুপার বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন আহম্মদের মা।

আবদুল আহম্মদের স্ত্রী মায়া মনি বলেন, আমার স্বামীকে আটকের পর পুলিশ হেফাজতে রেখে নির্যাতন করে। ১৪ মার্চ তাকে আটক করলেও ১৬ মার্চ তাকে মিথ্যা মামলা দিয়ে আদালতের পাঠায়।

তিনি আরো বলেন, আবদুলকে প্রচুর নির্যাতন করে আদালতে পাঠালে কোর্ট পুলিশ আহতাবস্থায় তাকে গ্রহণ করেনি। আদালত থেকে চিকিৎসার জন্য তাকে নিয়ে যাওয়ার প্রমাণ সিসিটিভি ফুটেজ দেখলে মিলবে। পুলিশের ভয়ে আমরা নিরাপত্তাহীনতায় আছি।

জানতে চাইলে পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শাখাওয়াত হোসেন বলেন, লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্তের জন্য অতিরিক্ত পুলিশ সুপারকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। তিনি তদন্ত শেষে প্রতিবেদন দেবেন।

বাঞ্ছারামপুরে হত্যার উদ্দেশ্যে হামলার অভিযোগ ॥ থানায় মামলা

বাঞ্চারামপুর, 7 January 2023, 919 Views,
স্টাফ রিপোর্টার:
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুরে হত্যার উদ্দেশ্যে হামলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত রবিবার (১ জানুয়ারি) রাত পৌনে ৮টায় বাঞ্ছারামপুর পৌরসভায় এ ঘটনা ঘটে। গুরুতর আহত মনির হোসেন বাঞ্ছারামপুর পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ড নতুনহাটির মরহুম আব্দুল হাকিম সিকদারের ছেলে। এ ঘটনায় বাঞ্ছারামপুর মডেল থানায় একটি ডায়েরি ও মামলা দায়ের করা হয়।
জানা যায়, বাঞ্ছারামপুর প্রতাবগঞ্জ বাজার থেকে বাড়ি ফেরার পথে পূর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী দেশীয় অস্ত্রেশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে হত্যার উদ্দেশ্যে মনির হোসেন ও ইমান মিয়ার উপর হামলা চালানো হয়। স্থানীয় আব্দুল কাদির মিয়ার ছেলে আমির হামজা, আব্দুল মজিদ মিয়ার ছেলে ফারুক মিয়া, সিরাজুল ইসলামের ছেলে ওসমান গণি, সাইজউদ্দিনের ছেলে আব্দুল কাদির, সফিক মিয়ার ছেলে এরশাদ মিয়া, বাবুল মিয়ার ছেলে মাহবুব মিয়া, সাইদুল মিয়া, জয়নাল আবেদিনের ছেলে রিয়াজুল ইসলাম, মজিবুর রহমানের ছেলে নাজিমউদ্দিন, ফোরকান মিয়ার ছেলে শরিফ মিয়া, আলমগীর মিয়ার ছেলে কামরুল মিয়া, আশাবুদ্দিনের ছেলে আরিফ মিয়া এবং ধারিয়ারচর গ্রামের সাম মিয়ার ছেলে ইমন মিয়ার বিরুদ্ধে হামলার অভিযোগ পাওয়া যায়। হামলাকারীদের কাছ থেকে মনির হোসেন ও ইমান মিয়াকে বাঁচাতে গিয়ে আহত হন ইয়াছিন সিকদার, আমজাদ হোসেন, আব্দুল্লাহ, মোহাম্মদ আশিক মিয়া, জামাল সিকদার ও ফজর আলী সিকদার। হামলায় গুরুতর আহত মনির সিকদারকে প্রথমে বাঞ্ছারামপুর সদর হাসপাতাল ও পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।
এ ঘটনায় বাঞ্ছারামপুর মডেল থানায় সাধারণ ডায়েরী ও একটি মামলা করা হয়। সাধারণ ডায়েরি নং- ৮২/২০২৩। এছাড়া ১৪৩/ ৩৪১/ ৪৪৭/ ৩২৩/ ৩২৬/ ৩০৭/ ৪২৭/ ১১৪/ ৫০৬ পেনাল কোডের আওতায় রজু করা মামলা নং-২, তারিখ- ০২.০১.২০২৩ইং।
হামলায় আহত আমজাদ হোসেন জানান, ফারুক মিয়া নানাবিধ অপকর্ম করে যাচ্ছে। তার অত্যাচার নির্যাতনে অতিষ্ঠ হয়ে ২০১৭ সালের ১৬ জুলাই এলাকাবাসী ব্রাহ্মণবাড়িয়া পুলিশ সুপারের বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েছিল। একই কারণে স্থানীয় রবি মিয়া ও মোশারফ হোসেন ২০২২ সালের ১৩ ও ১৫ নভেম্বর ২টি মামলা দায়ের করেন। নতুনহাটির প্রবাসী জামাল মিয়াও চাঁদাবাজির মামলা দায়ের করেন। ফারুক মিয়া অপ্রতিরোধ্য উল্লেখ করে তিনি তার নানা অপকর্মের ফিরিস্তি তুলে ধরে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেন।

তিতাস নদী দখল করে বাঁধ নির্মাণ

জাতীয়, বাঞ্চারামপুর, 24 May 2023, 1451 Views,

চলারপথে রিপোর্ট :
কুমিল্লার হোমনা উপজেলায় তিতাস নদীর জায়গা দখল করে বাঁধ নির্মাণের অভিযোগ উঠেছে। এই বাঁধের কারণে নদী সংকুচিত হয়ে নৌ-চলাচল বাধাগ্রস্ত হওয়ার আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। রামকৃষ্ণপুর এলাকায় এই বাঁধ দেওয়া হয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, তিতাস নদী হোমনা উপজেলার শ্রীমদ্বীর মেঘনা নদী থেকে উৎপত্তি হয়ে মুরাদনগর উপজেলার রামচন্দ্রপুর গিয়ে শেষ হয়েছে। এই নদী দিয়ে বাঞ্ছারামপুর, হোমনা, মুরাদনগর উপজেলার ব্যবসায়ীরা নৌপথে পণ্য আনা-নেওয়া করেন। তিতাস নদীর অংশটি দুই বছর আগে নৌচলাচলের সুবিধার জন্য খনন করে বিআইডব্লিউটিএ। এই নদী দিয়ে প্রতিদিন ঢাকার সদরঘাট ও নারায়ণগঞ্জে কয়েকটি লঞ্চ ও শতাধিক ট্রলার চলাচল করে।

সরেজমিন দেখা গেছে, চান্দেরচর ইউনিয়নের রামকৃষ্ণপুর আড়ালিয়াকান্দি গ্রামের রামকৃষ্ণপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের উত্তর পাশে তিতাস নদীতে একটি পাকা ঘাটলা রয়েছে। এই ঘাটলায় প্রতিদিন শত শত মানুষ গোসল করে। ঘাটলাটি থেকে আরো ৩০-৪০ ফুট উত্তরে নদীর মধ্যে মাটি দিয়ে পূর্ব-পশ্চিমে একটি বাঁধ নির্মাণ করা হয়েছে। বাঁধটি রক্ষার জন্য নদীর মধ্যে মুলির (বাঁশ) বেড়া ও বাঁশ দিয়ে বেড়া দেওয়া হয়েছে।

নৌকার মাঝি সোলেমান জানান, প্রতিদিন এই নদী দিয়ে শত শত নৌকা চলাচল করে। এই বাঁধের কারণে নৌকা চলাচল সমস্যা হবে। দুর্ঘটনার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

বাঁধ নির্মাণকারীদের একজন মাসুদ ভূঁইয়া। তিনি বলেন, ‘যে জায়গায় বাঁধ দেওয়া হয়েছে, সেটি আমাদের বাড়ির অনেকের জমি। আমারও ৩০ শতক জমি আছে বাঁধের মধ্যে। মাছ চাষ করতে এই বাঁধ দেওয়া হয়েছে।’

চান্দেরচর ইউনিয়ন ভূমি উপসহকারী কর্মকর্তা আমান উল্লাহ জানান, তিতাস নদীতে বাঁধ দেওয়ার খবর পেয়ে তাকে ঘটনাস্থলে পাঠান উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি)। তাঁর সঙ্গে আলাপ করে জায়গাটি পরিমাপ করা হবে।

সহকারী কমিশনার (ভূমি) ইউসুফ হাসান জানান, নদীতে কোনো রকম বাঁধ দেওয়ার সুযোগ নেই। বিশেষ করে নৌচলাচলে বাধা সৃষ্টি হয় এমন কোনো কাজ করা যাবে না। জমির মালিকরা বলছে এটা তাদের জায়গা, কিন্তু নদীর প্রবাহ ব্যাহত হয় এমন কাজ করা যাবে না। বাঁধ অপসারণ করতে বলা হয়েছে। তা না করলে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সোবহান আনভীরের জন্মদিনে বাঞ্ছারামপুরের ৯৮ মাদরাসায় প্রীতিভোজ

বাঞ্চারামপুর, 31 January 2024, 338 Views,

চলারপথে রিপোর্ট :
দেশের শীর্ষ শিল্পগোষ্ঠী বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) সায়েম সোবহান আনভীরের জন্মদিন উপলক্ষে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুর উপজেলার ৯৮টি মাদরাসা ও এতিমখানায় কোরআন খতম, দোয়া মাহফিল ও প্রীতিভোজের আয়োজন করা হয়েছে।

আজ ৩১ জানুয়ারি বুধবার দুপুরে এসব প্রতিষ্ঠানের প্রায় চার হাজার শিক্ষক ও শিক্ষার্থীর জন্য প্রীতিভোজের আয়োজন করা হয়।

জন্মদিনে সায়েম সোবহান আনভীরের সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনার পাশাপাশি বসুন্ধরা গ্রুপের উন্নতির দোয়া করেছে এতিম শিশুরা।

বাঞ্ছারামপুর উপজেলা সদরের সোবহানিয়া ইসলামিয়া ফাজিল মাদরাসা এবং কালিকাপুর গ্রামের কালিকাপুর-রাধানগর কবরস্থান নুরানীয়া হাফিজিয়া মাদরাসা ও এতিমখানায় আয়োজিত দোয়া মাহফিল ও প্রীতিভোজে বসুন্ধরা ফাউন্ডেশনের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার (ডিজিএম) মাইমুন কবির, ইনচার্জ মোশাররফ হোসেন, মো. শাহীন মিয়া ও মো. বাছির মিয়াসহ মাদরাসার শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা অংশ নেন।

বসুন্ধরা ফাউন্ডেশনের ডিজিএম মাইমুন কবির বলেন, এমডির জন্মদিন আমরা ইসলামি রীতিতে পালন করেছি। উপজেলার ৯৮টি মাদরাসার প্রায় চার হাজার শিক্ষার্থীর জন্য খাবারের আয়োজন করা হয়েছে। এসব মাদরাসার প্রতিটিতে কোরআন খতম ও দোয়ার আয়োজন করা হয়েছে। এমডি ও তার পরিবারের সবার জন্য দোয়া করা হয়েছে।