হত্যার বিচারের দাবিতে মানববন্ধন

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর, 10 June 2023, 617 Views,

চলারপথে রিপোর্ট :
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় পাওনা টাকা নিয়ে প্রতিপক্ষের বল্লমের আঘাতে নিহত প্রবাসী খাইরুল ইসলাম খোকনের হত্যাকারীদের বিচারের দাবিতে মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী। আজ ১০ জুন শনিবার দুপুরে আখাউড়া-আগরতলা সড়কের সদর উপজেলার বাসুদেব বাসস্ট্যান্ড মোড়ে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

বাসুদেব ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল হাকিম মোল্লার সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন ৪ নম্বর ওয়ার্ড কোড়াবাড়ি গ্রামের মেম্বার আলমগীর হোসেন, বাসুদেব ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক তোফায়েল আহম্মেদ মোল্লা, আখাউড়া যুবলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি আব্দুল গফুর বাদল, মামলার বাদী নিহতের ভাই আকরাম হোসেন প্রমুখ।

এসময় বক্তারা বলেন, পূর্ব বিরোধের জের ধরে সন্ত্রাসীরা পরিকল্পিতভাবে খোকনকে নৃশংসভাবে হত্যা করেছে। এ হত্যার সাথে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানানো হয়।

উল্লেখ্য, জমিতে হাল চাষের ৫০০ টাকা পাওনা নিয়ে কোড্ডা গ্রামের মলাই মিয়া ও শাহ আলমের মধ্যে বিরোধ চলছিল। শুক্রবার রাতে বিষয়টি স্থানীয়ভাবে মীমাংসা করার সময় সালিশ চলাকালে মলাই মিয়ার পক্ষের লোকজনের বল্লমের আঘাতে শাহ আলমের পক্ষের খাইরুল ইসলাম খোকন নিহত হয়।

এ ঘটনায় নিহতের ভাই আকরাম হোসেন বাদী হয়ে ২৩ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত ১০/১৫ জনকে আসামি করে মামলা করে। পুলিশ এখন পর্যন্ত ৯ জনকে আটক করেছে। আটক ব্যক্তিরা হলেন-মলাই মিয়া, খসরু মিয়া, মামুন, ইয়াছিন, ফাতেমা, জামাল, মাইনুদ্দিন, বাহার ও একরাম।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ এমরানুল ইসলাম জানান, প্রবাসী খাইরুল ইসলাম হত্যার ঘটনায় ৯ জনকে আটক করা হয়েছে। অন্যান্য আসামিদেরও গ্রেফতারে অভিযান চলমান রয়েছে।

Leave a Reply

আখাউড়ায় জমে উঠেছে প্রচার-প্রচারণা

চলারপথে রিপোর্ট : আগামী ২১ মে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার আখাউড়া উপজেলা Read more

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় দুর্নীতি বিরোধী সমাবেশ

চলারপথে রিপোর্ট : ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় দুর্নীতি দমন কমিশনের সহায়তায় ও জেলা Read more

সরাইলে শান্তির দাবিতে শিশু শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

চলারপথে রিপোর্ট : দাঙ্গা ভুলে গ্রামে শান্তি প্রতিষ্ঠার দাবিতে ব্রাহ্মণবাড়িয়া Read more

কানাডা-জাপান সফরে গণপূর্তমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক : গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা র Read more

নবীনগরে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে একজনের মৃত্যু

চলারপথে রিপোর্ট : ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নবীনগরে ব্রাহ্মণহাতা (নারুই) গ্রামে মাটি Read more

আখাউড়ায় আবাসিক হোটেল থেকে নারীসহ চারজন…

চলারপথে রিপোর্ট : ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার আখাউড়ায় আবাসিক হোটেল থেকে দুই Read more

কৃতি শিক্ষার্থী সংবর্ধনা ও অভিভাবক সমাবেশ

চলারপথে রিপোর্ট : নবীনগরে ফতেহপুর কমলাকান্ত গুরুচরণ উচ্চ বিদ্যালয়ের এসএসসি Read more
ফাইল ছবি

হিট অ্যালার্টের মধ্যেই স্বস্তির বৃষ্টি ব্রাহ্মণবাড়িয়ায়

চলারপথে রিপোর্ট : সারাদেশে কয়েক দিন ধরে চলছে তীব্র গরম। Read more

সরাইলে অসহায় দুঃস্থদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী…

চলারপথে রিপোর্ট : ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সরাইলে আলী বক্স এন্ড ফ্রেন্ডস Read more

শেখ হাসিনা আছেন বলেই দেশ আজ…

চলারপথে রিপোর্ট : অনুমিত হিসাব সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি Read more

শেখ হাসিনা স্বপ্ন দেখেন, স্বপ্ন দেখান…

চলারপথে রিপোর্ট : ১৭ মে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন Read more

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ম্যারাথন প্রতিযোগীতায় ১৪০ জনের অংশ…

চলারপথে রিপোর্ট : ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ম্যারাথন প্রতিযোগীতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। জেলা রানার্স Read more

তিতাস নদীতে বর্ণাঢ্য নৌ র‌্যালি

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর, 24 September 2023, 437 Views,

চলারপথে রিপোর্ট :
ক্রমাগত দখল-দূষণে অস্তিত্ব হারিয়ে বিলীন হচ্ছে বাঙালির প্রাণের সাথে মিশে থাকা নদ-নদীগুলো। যার প্রভাবে ধুঁকছে প্রকৃতি ও পরিবেশ। সে অবস্থা থেকে নদী রক্ষার পাশাপাশি জনমনে নদীর প্রতি আন্তরিকতা বাড়াতে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় অনুষ্ঠিত হয়ে গেল বর্ণ্যাঢ্য নৌ র‌্যালি। গতকাল শনিবার বিকেলে নৌ দিবস উপলক্ষে ঐতিহ্যবাহী তিতাস নদীতে নদী ও প্রকৃতি সুরক্ষা নিয়ে কাজ করা সংগঠন “তরী’র উদ্যোগে এই র‌্যালির আয়োজন করা হয়।

‘নদী বাঁচলে, বাঁচবে দেশ’ এই স্লোগান সামনে রেখে শহরের তিতাস নদীর আনন্দবাজার নৌ-ঘাট থেকে ১০টি নৌকা নিয়ে র‌্যালিটি নদীর প্রায় ৩ কিলোমিটার পথ অতিক্রম করে। এ সময় নদী রক্ষার বিভিন্ন স্লোগানে পতাকা আর ব্যানার প্রদর্শন করে সাধারণ জনগনকে সচেতন করা হয়। র‌্যালিতে কবি-সাহিত্যিকসহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ও বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরাও অংশগ্রহণ করে। র‌্যালিটি দীর্ঘপথ অতিক্রম করার পর ভাদুঘর নৌ ঘাট গিয়ে শেষ হয়।

পরে সেখানে অনুষ্ঠিত হয় নদীভিত্তিক কবিতা নিয়ে নদী বন্দনা। উদ্বোধন করেন কবি জয়দুল হোসেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক জিয়াউল হক মীর (শিক্ষা ও প্রযুক্তি)। জাতীয় রবীন্দ্র সংগীত সম্মিলন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মাসুদুর রহমান, বঙ্গবন্ধু পরিষদের সদস্য সচিব ফয়েজুল কবির, সাহিত্য একাডেমির নির্বাহী সদস্য জামিনুর রহমান, খেলাঘরের সাধারণ সম্পাদক নীহার রঞ্জন সরকার, সাহিত্য একাডেমির সাধারণ সম্পাদক নূরুল আমিন, বঙ্গবন্ধু শিশু-কিশোর মেলার আহবায়ক ফজলুর রহমান মুকুল প্রমুখ।

সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ সেলিম শেখ বলেন, নদীকে বাঁচাতে প্রশাসন সব সময়ই তৎপর রয়েছে। নৌ র‌্যালির যে উদ্যোগ নেয়া হয়েছে, তার মাধ্যমে ব্রাহ্মণবাড়িয়াবাসীকে নদীকে দখল-দূষণের হাত থেকে রক্ষায় সচেতন করা হয়েছে।

দেশে প্রথম আল-মামুন সরকার পাচ্ছেন সরকারী সর্বোচ্চ সমাজসেবা পদক ‘জাতীয় মানবকল্যাণ পদক’

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর, 31 December 2022, 912 Views,
স্টাফ রিপোর্টার:
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় প্রদত্ত সমাজসেবায় সর্বোচ্চ জাতীয় পদক ‘জাতীয় মানবকল্যাণ পদক-২০২২’ অর্জন করেছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলাপরিষদের চেয়ারম্যান, যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা আল-মামুন সরকার। এর আগে ২০১৯ সালে প্রতিবন্ধীতার উন্নয়নে ব্যাপক ভূমিকা এবং অবদানের জন্য জাতীয়ভাবে তিনি সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের পদক ও সম্মাননা অর্জন করেছিলেন। সমাজসেবায় গুরুত্বপূর্ণ অবদান ও গৌরবোজ্জল ভূমিকার জন্য ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় প্রতিবন্ধী ও নিউরো ডেভেলাপমেন্টাল প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের কল্যাণ, জীবনমান উন্নয়ন, কর্মসংস্থান, ইনক্লুসিভ শিক্ষা বাস্তবায়ন ও সামাজিক সুরক্ষায় ধারাবাহিক অবদানের স্বীকৃতি স্বরুপ, সরকার জাতীয়ভাবে প্রথমবারের মতো তাঁকে এই অসামান্য গৌরবোজ্জল ‘জাতীয় মানবকল্যাণ পদক-২০২২’ এর জন্য মনোনিত করলেন। এই সম্মাননায় ১৮ ক্যারেট মানের ২৫ গ্রাম স্বর্ণ দ্বারা নির্মিত একটি পদক, ‘‘জাতীয় মানবকল্যাণ পদক-২০২২” এর একটি রেপ্লিকা, দুইলক্ষ টাকার ক্রসচেক এবং একটি সম্মাননা পত্র থাকবে।
উল্লেখ্য, আল-মামুন সরকার ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আপামর মানুষের কাছে একজন সৎ, নিষ্ঠাবান এবং সাদা মনের মানুষ হিসাবে বহুল পরিচিত।

সমাজসেবায় বিশেষ করে প্রতিবন্ধীদের শিক্ষা, কল্যাণ ও পূনর্বাসনে তাঁর ভূমিকা ও অবদান সর্বজন স্বীকৃত। পরিচ্ছন্ন ধারার একজন ব্যাতিক্রমধর্মী রাজনৈতিক নেতা হিসাবে তিনি সমাজসেবায় ইতিমধ্যে জাতীয়ভাবে খ্যাতি ও প্রশংসা অর্জন করেছেন। তাঁর এই পদক প্রাপ্তির সংবাদে আলোড়িত হবে ব্রাহ্মণবাড়িয়াবাসী এবং উজ্জীবিত হবে সমাজসেবায় সম্পৃক্ত বিভিন্ন ব্যাক্তি ও প্রতিষ্ঠান। ‘জাতীয় মানবকল্যাণ পদক-২০২০’ প্রদানের সরকারী অনুমোদন পত্রটি আল-মামুন সরকার এর কাছে হস্তান্তর করেন সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন) ড: শাহআলম, যুগ্ম সচিব মোহাম্মদ শাহীন ও উপসচিব (এনডিডি ও অটিজম) শবনম মুস্তারী রিক্তা।

জাতীয় মানবকল্যাণ পদকের প্রেক্ষাপট: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ১১ লাখ রোহিঙ্গাকে আশ্রয়দানসহ কয়েককোটি প্রতিবন্ধী, বিধবা এবং দু:স্থ ও অসহায় মানুষকে সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচীর আওতায় পূনর্বাসিত করার মানবিক মহান উদ্যোগ বিশ^ব্যাপী আজ ‘মাদার অব হিউম্যানিটি’ হিসাবে স্বীকৃতি লাভ করেছে। প্রধানমন্ত্রীর এ মহান উদ্যোগকে দেশের জনগন ও সমাজসেবার সাথে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান সমূহের মধ্যে ছড়িয়ে দেয়ার মাধ্যমে সমাজকল্যাণ ও সামাজিক ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠায় বিশেষ অবদানের জাতীয় স্বীকৃতি প্রদানের লক্ষ্যে সমাজসেবার সর্বোচ্চ জাতীয় পদক হিসাবে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার ২০১৯ সালের ৯ জানুয়ারী প্রকাশিত গেজেট বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে ‘মাদার অব হিউম্যানিটি সমাজকল্যাণ পদক নীতিমালা-২০১৮’ অনুমোদন করেছেন।
পরবর্তীতে প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মন্ত্রীপরিষদ সভায় এই নামকরণ পরিবর্তন করে ‘জাতীয় মানবকল্যাণ পদক-২০২২’ সংশোধিত নামকরণ অনুমোদন করা হয়। এর ধারাবাহিকতায় ১৯৭২ সালের সংবিধানের ১৫(খ) অনুচ্ছেদের বর্ণিত ‘সামাজিক নিরাপত্তার অধিকার’ প্রতিষ্ঠায় জাতীয়ভাবে অবদানের জন্য ব্যাক্তি, সংস্থা ও প্রতিষ্ঠান পর্যায়ে এই পদক প্রদানের লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়েছে।
সরকারের এই উদ্যোগে সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী ও সচিবসহ ১২টি মন্ত্রণালয়ের সচিবদের সমন্বয়ে গঠিত জাতীয় কমিটি কর্তৃক গত আগস্ট ২০২১ থেকে দেশব্যাপী জেলা পর্যায়ে ব্যাপক যাচাই-বাছাই ও তথ্যানুসন্ধান শেষে জাতীয় কমিটি কর্তৃক ব্যাক্তি পর্যায়ে আল-মামুন সরকারকে পদকের জন্য চূড়ান্তভাবে বাছাই করে অনুমোদনের জন্য মন্ত্রী পরিষদ বিভাগে প্রেরণ করেন। মন্ত্রী পরিষদ কর্তৃক অনুমোদিত প্রস্তাবে প্রধানমন্ত্রী সদয় সম্মতি প্রদান করায় আগামীকাল ২ জানুয়ারী জাতীয় সমাজসেবা দিবসে এই পদক প্রদানের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

চুরির চব্বিশ ঘন্টা পর চোর গ্রেপ্তার

বিজয়নগর, ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর, সরাইল, 12 December 2022, 2222 Views,

স্টাফ রিপোর্টার:
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে সিঁধ কেটে চুরির চব্বিশ ঘন্টা পর বিশেষ অভিযান চালিয়ে দুই চোরকে গ্রেপ্তার করেছে সরাইল থানা পুলিশ। গত রোববার দিবাগত রাত ২টায় উপজেলার নোয়াগাঁও থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। আটক ব্যাক্তিরা হলেন উপজেলার নোয়াগাঁও গ্রামের বাসিন্দা মো.রকিব মিয়া (১৯) ও মো. ছোয়াব মিয়া (২২)।
পুলিশ সূত্রে জানায়, গত শনিবার দিবাগত রাত ৩টায় উপজেলার নোয়াগাঁও (মধ্যপাড়া) গ্রামের বাসিন্দা শিখা আক্তারের ঘরে সিঁধ কেটে ঘরে প্রবেশ করে ড্রয়ার থেকে নগদ টাকা, স্বর্ণের দোল, স্যামসাং এ্যানড্রয়েট মোবাইলসহ সর্বসাকুল্যে ৭২ হাজার টাকার মালামাল চুরি করে নিয়ে যায়। সরাইল থানা পুলিশ চুরির এই সংবাদে রবিবার রাতে বিশেষ অভিযান চালিয়ে দুই সিঁধেল চোরকে গ্রেপ্তার করে তাদের কাছ থেকে ১৮ হাজার টাকা উদ্ধার করে।
সরাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আসলাম হোসেন জানান, গ্রেপ্তার হওয়া মো. রকিব মিয়া ও মো. ছোয়াব মিয়ার কাছে থেকে নগদ ১৮ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে সিঁধেল চুরির মামলা রুজু হয়েছে। গতকাল সোমবার তাদেরকে বিজ্ঞ আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া বিএনপির বিক্ষোভ মিছিল-প্রতিবাদ সমাবেশ

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর, 4 August 2023, 488 Views,

তারেক রহমান ও জুবাইদা রহমানকে সাজা দেয়ার প্রতিবাদে

চলারপথে রিপোর্ট :
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ তাঁর সহধর্মিনী জুবাইদা রহমানকে সাজা দেয়ার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে বিএনপি ও অঙ্গ-সংগঠনের নেতা-কর্মীরা।

আজ ৪ আগস্ট শুক্রবার বিকেল পৌনে ছয়টার দিকে পৌর শহরের পাওয়ার হাউজ রোড এলাকায় এই বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে শহরের পাওয়ার হাউজ রোড থেকে বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতা-কর্মীরা একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করেন। বিক্ষোভ মিছিলটি পাওয়ার হাউজ রোডের সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিসের সামনে পৌছলে সেখানে মিছিলটিকে আটকে দেয় পুলিশ। পরে সেখানেই সমাবেশ সভা করে তারা।

জেলা বিএনপির সদস্য মোঃ সিরাজুল ইসলামের সঞ্চালনায় প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপির সদস্য জহিরুল হক খোকন, অ্যাডভোকেট গোলাম সারওয়ার খোকন ও শফিকুল ইসলাম।

প্রতিবাদ সভায় বক্তারা বলেন, আদালতকে নিয়ন্ত্রণ করে ফরমায়েশী রায়ের মাধ্যমে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান ও তার সহধর্মিনী জোবাইদা রহমানকে সাজা দিয়েছে। এই রায় আমরা মানি না। সরকারকে এই অন্যায় সাজা প্রত্যাহার করতে হবে।

প্রতিবাদ সভায় জেলা বিএনপির সদস্য জহিরুল হক খোকন বলেন, প্রশাসন দিয়ে গুম করে বিএনপিকে শেষ করতে পারবে না, দূর্বল করতে পারবে না। ২০১৪ ও ২০১৮ সালের নির্বাচনে তারা বিএনপিসহ অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে কাউকে ভোট না দিতে দিয়ে সরকার গঠন করেছে। এখন আবার মিথ্যা মামলায় ফরমায়েশী রায় দিয়ে বিএনপিকে ধ্বংস করতে চাচ্ছে। কিন্তু বিএনপিকে এভাবে নির্মুল করা যাবে না।

পাটের ভালো ফলন, জাক দেয়া নিয়ে বিপাকে চাষিরা

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর, 18 August 2023, 496 Views,

চলারপথে রিপোর্ট :
এ সময়ের সোনালী আঁশ হিসেবে পরিচিত পাটের জৌলুস আগের মতো আর নেই। পাটের ভালো ফলন হলেও চাষিরা আশানুরূপ লাভবান হতে পারছেন না। এছাড়াও পাট জাক (পঁচানো) দেয়ার জন্য পর্যাপ্ত পানি ও জায়গা না থাকায় চাষীরা বিপাকে পড়েন। তবু ঐতিহ্যকে ধরে রাখার জন্য বংশ পরস্পরায় অনেক চাষি এখনো পাটের চাষ করছেন।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, ব্রাহ্মণবাড়িয়া কার্যালয়ের তথ্য মতে, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় চলতি মৌসুমে পাটের ভালো ফলন হয়েছে। লক্ষ্যমাত্রাও অর্জিত হয়েছে। এ বছর জেলায় উৎপাদিত পাট প্রায় ৬০ কোটি বিক্রির আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন তারা।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, ব্রাহ্মণবাড়িয়া কার্যালয়ের তথ্য মতে চলতি বছর পাটের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারন করা হয়েছিলো ৪ হাজার ১শ ৮৯ হেক্টর জমি। চাষ হয়েছে ৪ হাজার ১শ ৯১ হেক্টর জমি। ২ হেক্টর জমি বেশী চাষ হয়েছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নাসিরনগর উপজেলা, সরাইল উপজেলা, বিজয়নগর উপজেলা, নবীনগর উপজেলা বাঞ্ছারামপুর উপজেলায় পাটের ভালো ফলন হয়েছে। জেলায় চাষীরা এবার তাদের জমিতে দেশী কেনাফ, মেছতা এবং তোষা জাতের পাটের আবাদ করেছেন। ফলনও ভালো হয়েছে। তবে প্রতিকূল আবহাওয়ার কারনে পাটের আকার কিছুটা ছোট হয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গ্রামাঞ্চলে এখন চলছে পাটকাটা, পাট জাক দেয়া ও পাট শুকনোর কাজ। তবে বর্ষা মৌসুমে পর্যাপ্ত পরিমান পানি না হওয়ায় ও পাট জাক দেয়ার (পঁঁচানো) পর্যাপ্ত জায়গা না থাকায় বিপাকে পরেছেন পাট চাষীরা।

পাট চাষিদের অভিযোগ পাটের উৎপাদন খরচ বাড়লেও পাটের ন্যায্য মূল্য পাচ্ছেন না তারা। এজন্য কৃষকরা পাট চাষে আগ্রহ হারিয়ে ফেলছেন। তবে কৃষি বিভাগের দাবি ভালো ফলন ও লাভবান হওয়ায় প্রতিবছরই বাড়ছে পাটের আবাদ।

চাষিরা জানান, এক সময় পাটকে বলা হতো সোনালী আঁশ। পাট বিদেশে রপ্তানী হতো অর্জিত হতো বৈদেশিক মুদ্রা। ওই সময়ে সোনালী আঁশ পাট চাষে কৃষকরা লাভবান হওয়ায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিভিন্ন উপজেলায় গড়ে উঠেছিলো বড়-বড় হাট বাজার। এখন পাটের সোনালী দিন আর নেই। ঐতিহ্যকে ধরে রাখার জন্য বংশ পরস্পরায় অনেকে এখনো পাটের চাষ করছেন।

নাসিরনগরের দুলাল মিয়া নামে এক পাট চাষী জানান, আমরা যে আশা করে পাট চাষ করেছিলাম বৃষ্টি না থাকার কারনে আমাদের পাটগুলো আকারে ছোট হয়েছে। আগে পানির মধ্যে পাট কাটতে খরচ কম হতো কিন্তু এবার খরচ বেশি হয়েছে। পানি না থাকার কারণে পাট এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় নিয়ে যেতেও খরচ হয়। আর যদি পানি থাকতো তাহলে এখানেই সবকিছু করা যেতো। তিনি বলেন, বর্তমানে ২ হাজার টাকা মন দরে পাট বিক্রি হচ্ছে। এই দামে পাট বিক্রি করলে আমাদের লোকসান গুনতে হবে। সরকার যদি পাটের দামটা ৩ হাজার টাকা করে দিতো তাহলে আমরা লাভবান হতাম।

বিজয়নগর উপজেলার ফরিদ মিয়া নামে আরেক পাট চাষী বলেন, এবার আমরা পাট নিয়ে খুবই চিন্তিত। পানি না থাকায় জমি থেকে পাট কেটে অন্য জায়গায় নিতে শ্রমিক খরচও লাগছে। আমরা পাটের ন্যায্য মূল্য পাচ্ছি না। তিনি বলেন, পাট জাক দেয়ার জন্য পর্যাপ্ত পানি না পাওয়ায় আমাদেরকে বিপাকে পড়তে হয়েছে।

এ ব্যাপারে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার উপ-পরিচালক সুশান্ত সাহা বলেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় এবছর পাটের ভালো ফলন হয়েছে। পাট চাষে আমাদের লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হয়েছে। তিনি বলেন, চলতি বছর আমাদের পাট চাষে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিলো ৪ হাজার ১শ ৮৯ হেক্টর জমি, চাষ হয়েছে ৪ হাজার ১শ ৯১ হেক্টর জমি। তিনি বলেন, জেলার নাসিরনগর, সরাইল, বিজয়নগর, নবীনগর এবং বাঞ্ছারামপুর উপজেলায় পাটের আবাদ বেশী হয়েছে। চাষীরা তাদের জমিতে দেশী কেনাফ, মেছতা এবং তোষা জাতের পাটের আবাদ করেছেন। জেলায় কমপক্ষে ৪১ হাজার ১৬১টি বেল পাট উৎপাদন হবে। যার বাজার মূল্য কমপক্ষে ৬০কোটি টাকা।