ফেসবুকে ট্যুর প্যাকেজ, বুকিং মানির নামে আত্মসাৎ

জাতীয়, 5 December 2023, 115 Views,

অনলাইন ডেস্ক :
ইন্টেরিয়র আর্কিটেক্টের কাজ করেন নাহিদ হাজারিকা ইতি। পাশাপাশি নিয়মিত দেশে-বিদেশে ভ্রমণে আগ্রহ তার। ট্রিপকার্ট (Tripkart) নামের ফেসবুক ট্রাভেল এজেন্সির পেজে একটি অফার দেখতে পান তিনি। এজেন্সিটি মাত্র এক লাখ টাকায় দুবাই বা কাতারে ভ্রমণের সুযোগ উল্লেখ করে ফেসবুক পেজে বিজ্ঞাপন দেয়। ট্রিপকার্টের এমন বিজ্ঞাপন দেখে নাহিদ হাজারিকা ইতি নামের এক নারী দুই জনের জন্য বুকিং মানির অগ্রিম এক লাখ টাকা জমা দেন। এরপর থেকে এজেন্সিটি তার সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ করে দেয়।

প্রতারণার শিকার হয়েছেন বুঝতে পেরে বনানী থানায় মামলা করেন ইতি। মামলাটি তদন্তের দায়িত্ব পায় ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের ডিবি-সাইবার অ্যান্ড স্পেশাল ক্রাইম (উত্তর) বিভাগ। তদন্তে নেমে পর্যটকদের বিশ্বাসকে পুঁজি করে প্রতারণায় জড়িত চক্রের তিন সদস্যকে গ্রেফতার করে ডিবি।

গ্রেফতাররা হলেন চক্রের মূলহোতা সাইফুল আলম ওরফে অপু, আহাদ আলম ওরফে তালহা ও মো. আমিনুল ইসলাম।

ডিবি বলছে, চক্রটি সীমিত খরচে ট্যুর প্যাকেজ বিক্রির নামে দীর্ঘদিন ধরে প্রতারণা করে আসছিল। গত এক বছরে চক্রের হাতে দুইশর বেশি মানুষ প্রতারিত হয়েছে। অপু ও তার চক্রের সদস্যরা গ্রেফতারের খবরে বহু ভুক্তভোগী গোয়েন্দা পুলিশ কার্যালয়ে ভিড় করেন।

গ্রেফতারের সময় তাদের কাছ থেকে একটি ল্যাপটপ, ১৪টি পাসপোর্ট, ১০টি মোবাইল ফোন, ১৫টি সিমকার্ড, দুটি ল্যান্ডফোন, একটি ওয়াকিটকি সেট, একটি সিপিইউ ডেক্সটপ, পাঁচটি এটিএম কার্ড ও ছয়টি ব্যাংক চেক উদ্ধার করা হয়।

আজ ৫ ডিসেম্বর মঙ্গলবার রাজধানীর মিন্টু রোডের নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ।

তিনি বলেন, ‘ট্রিপকার্ড’র নামের কথিত এই ট্যুর অপারেটর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বিভিন্ন পেজে বিজ্ঞাপন দিত। তারা বিভিন্ন প্যাকেজের আওতায় দিন ও রাত থাকা, হোটেলে বুকিং, এয়ারপোর্ট পিকআপ, ড্রপআপ, গাইডের মাধ্যমে বিভিন্ন দর্শনীয় স্থানে ভ্রমণের ট্যুর প্যাকেজ ঘোষণা করতো। একসঙ্গে ৪০ জনের ভিসা ও বিমানের টিকিট কাটাসহ সব দায়িত্ব নিজেরাই পালন করার আশ্বাস দিতো। এছাড়া প্যাকেজে আরও সুযোগ-সুবিধা দেওয়ার ঘোষণাও থাকতো। এত কম টাকায় এমন অফার পেয়ে সাধারণ মানুষ তাদের ফাঁদে পা দিতো।

সাধারণ মানুষের বিশ্বাস অর্জনের জন্য রাজধানীর গুলশান, বারিধারা, ধানমন্ডিসহ অভিজাত এলাকায় অফিস নিয়ে প্রতারণা করতো চক্রটি। এক এলাকায় অফিস খুলে লাখ লাখ টাকা আত্মসাৎ করে গা ঢাকা দিত তারা। এরপর দুই মাস আত্মগোপনে থেকে ভিন্ন নামে অন্য এলাকায় একই কাজ করতো। গ্রেফতার সাইফুল আলম ওরফে অপুর নেতৃত্বে চক্রটি গত ছয় মাসে ভুক্তভোগীদের কাছ থেকে ৫৮ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে।

গোয়েন্দা কর্মকর্তারা ‘ট্রিপকার্ড’র নামের ওয়েবসাইটের ড্যাশবোর্ডের তথ্যে গত ছয় মাসে শতাধিক মানুষের সঙ্গে প্রতারণার তথ্য পেয়েছে।

রাজধানীর গুলশান এলাকার বাসিন্দা জুই আক্তার। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত একটি কলেজে পড়াশোনা করেন। সম্প্রতি ভ্রমণের উদ্দেশে মালদ্বীপের যাওয়ার জন্য ট্যুর অপারেটর প্রতিষ্ঠান ‘ট্রিপকার্ড’র ফেসুবকের মাধ্যমে যোগাযোগ করেন। অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের তুলনায় কম খরচে আকর্ষণীয় প্যাকেজ দেখে আকৃষ্ট হন জুই। এরপর ভিসা ও অন্যান্য খরচের জন্য অগ্রিম ৫৫ হাজার দেন। কিন্তু টাকা দেওয়ার কিছুদিন পর দেখতে পান ‘ট্রিপকার্ড’র অফিস বন্ধ। পরে খোঁজ নিয়ে জানতে পারেন তারা অফিস ছেড়ে চলে গেছেন। নানাভাবে চেষ্টা করেও আর যোগাযোগ করতে পারেননি। পরিবার নিয়ে ঘুরতে যাওয়ার আশায় টাকা দিয়ে প্রতারণার শিকার হন জুই। একইভাবে দীর্ঘদিন ধরে চক্রটির প্রতারণার শিকার হয়েছেন শতাধিক মানুষ।

যেভাবে প্রতারণার শুরু
ডিবিপ্রধান মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ বলেন, সাইফুল আলম ওরফে অপুর কথিত এই ‘ট্রিপকার্ড’ নামের ওয়েবসাইটে বিভিন্ন ট্যুর প্যাকেজ দিয়ে বিজ্ঞাপন দেওয়া হতো। ট্যুরে যাওয়ার জন্য ওয়েবসাইটের নির্ধারিত টাকার পরিমাণের ৪০ শতাংশ অগ্রিম জমা দিয়ে বুকিং নিতে হতো। বুকিং মানি প্রতারকরা নির্ধারিত ব্যাংক অ্যকাউন্টের মাধ্যমে লেনদেন করতো। পরে বিভিন্ন দেশের ট্যুর প্রসেসিংয়ের জন্য অফিসে ডেকে ট্যুর প্যাকেজের সম্পূর্ণ টাকা নিতো।

এভাবে কয়েকশো মানুষের কাছ থেকে বিপুল পরিমাণ টাকা হাতিয়ে নিয়ে মোবাইল ফোন বন্ধ করে অফিস পরিবর্তন করে ফেলত তারা। পরে দুই মাস নিজেরা আত্মগোপন থাকত। এরপর আবার অন্য নামে ফেসবুকে পেজ ও ওয়েবসাইট তৈরি করে আবারও প্রতারণা করত। বুকিং মানির সম্পূর্ণ টাকাই প্রতারক চক্র আত্মসাৎ করতো।

এ ধরনের চক্রের হাত থেকে সর্তক থাকার আহ্বান জানিয়ে গোয়েন্দাপ্রধান বলেন, যে কোনো ওয়েবসাইট বা ফেসবুক পেজের পরিচয় নিশ্চিত না হয়ে লেনদেনের ক্ষেত্রে সতর্ক থাকতে হবে। আকর্ষণীয় ও কম মূল্যের বিজ্ঞাপনে প্রলুব্ধ না হয়ে, বৈধ লাইসেন্সধারী ট্রাভেল এজেন্সির মাধ্যমে সেবা নিতে হবে। কোনো প্রতিষ্ঠান বা ব্যক্তির মাধ্যমে এ ধরনের প্রতারণার শিকার হলে থানায় মামলা বা অভিযোগ দিতে হবে। এছাড়া নিজের পাসপোর্ট কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের কাছে দেওয়ার ক্ষেত্রে সতর্ক থাকতে হবে।

Leave a Reply

ফাইল ছবি

অনুমতি ছাড়া হজ করলে জেল-জরিমানা

অনলাইন ডেস্ক : আসন্ন হজ মৌসুমে অনুমতি ছাড়া হজ পালন Read more

৭ বছর বয়সী শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে…

চলারপথে রিপোর্ট : সাত বছর বয়সী এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে Read more

ইন্দোনেশীয় তরুণীর সাথে বাংলাদেশি যুবকের বিয়ে

অনলাইন ডেস্ক : ইন্দোনেশীয় তরুণী ইফহা। কাজের সুবাদে এই তরুণী Read more

মায়ের পাশেই শায়িত হলেন প্রবাসী শাহ…

চলারপথে রিপোর্ট : মায়ের অসুস্থতার খবরে দেশে আসতে ইতালি থেকে Read more

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বঙ্গবন্ধু ব্যাডমিন্টন টুর্ণামেন্টের উদ্বোধন করলেন…

চলারপথে রিপোর্ট : ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আজ ২৩ ফেব্রুয়ারি শুক্রবার থেকে শুরু Read more

সোলায়মানের মরদেহ দেখতে পারার আকুতি বাবার

চলারপথে রিপোর্ট : জীবিকার তাগিদে তিন বছর আগে সৌদি আরবে Read more

বাঞ্ছারামপুরে ১২০০ রোগীকে ফ্রি চক্ষুসেবা

চলারপথে রিপোর্ট : ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বাঞ্ছারামপুর উপজেলায় এক হাজার ২০০ Read more

রেলওয়ের ২০০ পিস কাঠের স্লিপারসহ আটক…

চলারপথে রিপোর্ট : রেলওয়ের ২০০পিস কাঠের পুরাতন স্লিপার চুরির উদ্দেশ্যে Read more

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর কেন্দ্রীয় সমবায় সমিতি লিমিটেডের…

চলারপথে রিপোর্ট : ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সদর উপজেলা কেন্দ্রীয় সমবায় সমিতি লিঃ Read more

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বাখরাবাদের ৪০অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন

চলারপথে রিপোর্ট : ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার রামরাইলে অবৈধ গ্যাস সংযোগের Read more

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান পদে ভোট…

চলারপথে রিপোর্ট : ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচনে প্রতীক Read more

নিখোজ গৃহবধূ ১ মাস পর ঢাকা…

চলারপথে রিপোর্ট : ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বিজয়নগর থেকে নিখোঁজ গৃহবধু খাদিজা Read more

বিএনপি অস্থিরতা সৃষ্টির চেষ্টা করলে দেশের মানুষ তাদের প্রতিরোধ করবে: আল মামুন সরকার

জাতীয়, 10 January 2023, 693 Views,
স্টাফ রিপোর্টার:
ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা আল মামুন সরকার বলেছেন, বিএনপি আন্দোলনে নামবার আগে দেখতে হবে তাদের কোমর ঠিক আছে কিনা। ২০১৩-১৪ সালে তারা সারাদেশে যে পরিমান আগুন সন্ত্রাস করেছে তাতে সকল অপরাধের বিচার দেশে হবে। তিনি আরো বলেন, আন্দোলনের নামে বিএনপি যদি অস্থিরতা সৃষ্টির চেষ্টা করে অথবা দেশের সম্পদ নষ্ট করে তবে দেশের মানুষ তাদের প্রতিরোধ করবে। তিনি ১১ জানুয়ারি থেকে রমজানের পূর্ব পর্যন্ত দলীয় নেতাকর্মীদের সতর্ক থাকার আহবান জানান। তিনি গতকাল ঐতিহাসিক ১০ জানুয়ারি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উদযাপনে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলা ও পৌর আওয়ামী লীগের উদ্যোগে আলোচনা সভায় প্রধান বক্তার বক্তব্যে এ কথা বলেন। শহরের শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত ভাষা চত্বরে এ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সদর উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল কালাম ভূঞা। বিশেষ অতিথি থাকবেন জেলা আওয়ামী লীগ সিনিয়র সহ-সভাপতি হেলাল উদ্দিন, সহ-সভাপতি মো. হেলাল উদ্দিন, পৌর আওয়ামী লীগ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মুসলিম মিয়া। পৌর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম এর সঞ্চালনায় স্বাগত ভাষণ প্রদান করেন সদর উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এমএএইচ মাহবুব আলম।
অন্যান্যের মাঝে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম-সম্পাদক গোলাম মহিউদ্দিন খান খোকন, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক এড. মাহবুবুল আলম খোকন, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এড. তাসলিমা সুলতানা খানম নিশাত, জেলা যুব লীগ সাধারণ সম্পাদক এড. সিরাজুল ইসলাম ফেরদৌস, জেলা কৃষকলীগ যুগ্ম-আহবায়ক মো. সেলিম, জেলা শ্রমিকলীগ সাধারণ সম্পাদক আশরাফ খান আশা, জেলা যুব মহিলা লীগ সাধারণ সম্পাদক আলম তারা দুলি, জেলা তাঁতী লীগ সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন দুলাল, সরকারি কলেজ শাখা ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক জোবায়ের মাহমুদ শ্রাবণ।

খালেদা জিয়ার মুক্তির মেয়াদ আরো ৬ মাস বাড়ছে

জাতীয়, রাজনীতি, 12 March 2023, 947 Views,
ফাইল ছবি

চলারপথে ডেস্ক :
দুর্নীতির দুই মামলায় সাজাপ্রাপ্ত বিএনপি চেয়ারপারসন অসুস্থ খালেদা জিয়ার সাজা স্থগিত করে মুক্তির মেয়াদ আরো ৬ মাস বাড়ানোর পক্ষে মত দিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক।

খালেদা জিয়ার পরিবারের এক আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আজ ১২ মার্চ রবিবার এ মতামত দেওয়া হয়।

শর্তসাপেক্ষে খালেদা জিয়ার মুক্তির মেয়াদ আগামী ২৪ মার্চ শেষ হচ্ছে। গত সপ্তাহে তার পরিবারের পক্ষ থেকে খালেদা জিয়ার কারামুক্তি ও উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশ যাওয়ার অনুমতি চেয়ে করা আবেদনটি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে দাখিল করা হয়। এরপর মতামতের জন্য আবেদনটি আইন মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়।

আজ সচিবালয়ে সাংবাদিকদের আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেন, বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়াকে শর্ত সাপেক্ষে মুক্তি দেওয়া হয়েছিল। সেটার সময় শেষ হয়ে আসায় পরিবারের পক্ষ থেকে আবেদন করা হয়েছিল। আমরা তাকে আগের মতো দুটি শর্তে সাজা স্থগিত করে মুক্তির মেয়াদ ৬ মাসের জন্য বৃদ্ধি করেছি। শর্তগুলো হলো তিনি ঢাকায় নিজ বাসায় থেকে তার চিকিৎসাগ্রহণ করবেন। হাসপাতালে যেতে পারবেন না-তা নয়, যেতে পারবেন এবং উক্ত সময় তিনি দেশের বাইরে যেতে পারবেন না।

খালেদা জিয়া বাসায় থেকে রাজনীতি করতে পারবেন কি-না জানতে চাইলে আইনমন্ত্রী বলেন, আমাদের কাছে আসা আবেদনে বলা হয়েছে, তিনি গুরুতর অসুস্থ। সেক্ষেত্রে রাজনীতি করার প্রশ্নটাই অবান্তর। তিনি মুক্ত, তিনি অসুস্থ, তিনি চিকিৎসা নিচ্ছেন। আমার মনে হয়, এখানে রাজনীতির কথা আসার কোনো প্রয়োজন নেই।

আনিসুল হক বলেন, একজন অসুস্থ মানুষ কী করতে পারবেন, কী করতে পারবেন না, আমি সেই নির্দেশনা দেব না। সবাই স্বীকার করছেন, তিনি অসুস্থ। এটা পরিষ্কার করার কিছু নেই। একটা বাস্তবতা, তাকে যে মুক্তি দেওয়া হয়েছে সেই আবেদনের মধ্যে প্রথমে থেকেই যে কথাটা কনস্ট্যান্ট ছিল, তিনি গুরুতর অসুস্থ। এজন্য দুই শর্তে তার দণ্ডাদেশ স্থগিত করে তাকে মুক্ত করা হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, আবেদনসংক্রান্ত নথি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। এরপর সেখান থেকে প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে। এ নিয়ে সপ্তমবারের মতো খালেদা জিয়ার মুক্তির মেয়াদ বাড়ছে।

করোনা মহামারির মধ্যে ২০২০ সালের ২৫ মার্চ সরকারের নির্বাহী আদেশে খালেদা জিয়ার কারাদণ্ড ৬ মাস স্থগিত করার পর তিনি কারাগার থেকে মুক্তি পান। এরপর পরিবারের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে তার কারামুক্তির মেয়াদ ৬ বার বাড়ানো হয়।

৭৮ বছর বয়সী সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া বর্তমানে গুলশানের বাসভবনে অবস্থান করছেন। করোনাভাইরাস ও লিভার সিরোসিসসহ নানা রোগে আক্রান্ত হয়ে বেশ কিছুদিন হাসপাতালে চিকিৎসাও নেন তিনি। উন্নত চিকিৎসার জন্য খালেদা জিয়াকে বিদেশে নিতে বিএনপি বরাবরই দাবি জানিয়ে আসছে। এর আগে পরিবারের পক্ষ থেকেও কয়েক দফা আবেদন করা হয়েছিল। কিন্তু তা নাকচ করে দেয় সরকার।

সবকিছুর উচ্চমূল্যে হিমশিম খাচ্ছে সাধারণ মানুষ : রওশন এরশাদ

জাতীয়, 25 June 2023, 401 Views,
সংসদে রওশন এরশাদ। ফাইল ছবি

অনলাইন ডেস্ক :
জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ বলেছেন, সবকিছুর উচ্চমূল্যে সাধারণ মানুষ হিমশিম খাচ্ছে। এখন মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণ বড় চ্যালেঞ্জ। কর্মসংস্থানের পরিবর্তে কর্মহীনতার সংখ্যা বাড়ছে।

আজ ২৫ জুন রবিবার জাতীয় সংসদে ২০২৩-২০২৪ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটের ওপর সাধারণ আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি এ কথা বলেন। এর আগে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদের বৈঠক শুরু হয়।

তিনি বলেন, এই বাজেট একদিকে সম্প্রসারণমূলক, আরেকদিকে বিশাল ঘাটতির। চলতি অর্থবছরে বাজেট বাস্তবায়নের অবস্থা ভালো নয়। আগামী অর্থবছরে জিডিপি প্রবৃদ্ধি ধরা হয়েছে ৭ দশমিক ৫ শতাংশ। এই জিডিপি অর্জন কঠিন হবে।

রওশন এরশাদ বলেন, রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের প্রভাবে দেশের অর্থনীতির গতি শ্লথ হয়েছে। রিজার্ভে টান পড়েছে। রপ্তানি আয় বাড়ানোর চেষ্টা করতে হবে।

জ্বালানির দাম নিয়ন্ত্রণে রাখার দাবি জানিয়ে তিনি বলেন, এই খাতে দাম বাড়ানো হলে সবকিছুর দাম বাড়বে।

তিনি বলেন, এবারের বাজেট এমন এক সময় হয়েছে যখন নানামুখী চ্যালেঞ্জ ও সমস্যায় বিশ্ব অর্থনীতি। সারা বিশ্বে উচ্চ মূল্যস্ফীতি বিরাজ করছে যা গত ৪০ বছরেও দেখা যায়নি।

৪ দিনের সফরে পাবনায় পৌঁছেছেন রাষ্ট্রপতি মো: সাহাবুদ্দিন

জাতীয়, 15 May 2023, 591 Views,

চলারপথে রিপোর্ট :
চারদিনের রাষ্ট্রীয় সফরে নিজ জেলা পাবনায় এসে পৌঁছেছেন দেশের ২২তম রাষ্ট্রপতি মো. সাহাবুদ্দিন।

আজ ১৫ মে সোমবার দুপুর ১২টা ০৮ মিনিটে ঢাকা থেকে হেলিকপ্টারযোগে পাবনা শহীদ অ্যাডভোকেট আমিন উদ্দিন স্টেডিয়ামে এসে পৌঁছান তিনি। এরপর পাবনা সার্কিট হাউজে উপস্থিত হয়ে গার্ড অব অনার গ্রহণ করেন।

পাবনার জেলা প্রশাসক বিশ্বাস রাসেল হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

রাষ্ট্রপতির প্রটোকল অফিসার নবিরুল ইসলাম সাক্ষরিত সফরসূচি অনু্যায়ী জানা গেছে, দুপুর ১টা ৩৫ মিনিটে জেলা পরিষদ বঙ্গবন্ধু চত্ত্বরের নাম ফলক উদ্বোধন ও বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতির পুষ্পস্তবক অর্পণ করবেন রাষ্ট্রপতি। এরপর ১টা ৪৫ মিনিটে পাবনা সদর আরিফপুর কবরস্থানে উপস্থিত হয়ে বাবা-মায়ের কবরে পুষ্পস্তবক অর্পণ ও মোনাজাতে অংশ নিবেন। এরপর বেলা ২ টায় স্কয়ার বাগানবাড়িতে পারিবারিক সমাধিস্থলে উপস্থিতি, পুষ্প অর্পণ এবং প্রার্থনায় অংশ নিবেন।

পরদিন ১৬ মে মঙ্গলবার সকাল ১০টায় পাবনা বিসিক শিল্পনগরীতে স্কয়ার সাইন্স এন্ড লাইফ প্ল্যান্ট উদ্বোধন করবেন। বেলা ১১টায় পাবনা প্রেসক্লাবে স্থানীয় সাংবাদিকদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন। বেলা ৩টায় পাবনা সরকারি অ্যাডওয়ার্ড কলেজ মাঠে নাগরিক সংবর্ধনায় যোগ দেবেন।

১৭ মে বুধবার বেলা ১১টায় পাবনা ডায়াবেটিক সমতি পরিদর্শন। বিকেল ৪টায় জেলা ও দায়রা জজ আদালতের যাদুঘর, বঙ্গবন্ধু কর্ণার, বঙ্গবন্ধু ম্যুরাল উদ্বোধন এবং আইনজীবীদের সঙ্গে মত বিনিময় করবেন। এছাড়া বিকেলে ৫টায় বীর মুক্তিযোদ্ধা সাহাবুদ্দিন চুপ্পু বিনোদন পার্ক পরিদর্শন করবেন। ১৮ মে বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১১টায় সার্কিট হাউজে গার্ড অব অনার গ্রহণ শেষে ১১টক ৪০ মিনিটে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওয়ানা দিবেন।

পাবনার পুলিশ সুপার (এসপি) আকবর আলী মুন্সী বলেন, মহামান্য রাষ্ট্রপতির পাবনা সফরকে কেন্দ্র করে সর্বোস্তরের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হয়েছে।

পাবনার জেলা প্রশাসক বিশ্বাস রাসেল হোসেন এসব তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, মহামান্য রাষ্ট্রপতির পাবনা সফর ঘিরে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। তার পাবনা সফর যাতে সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে শেষ করতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে সবধরনের ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে।

দ্রুত ন্যায়বিচার নিশ্চিতে সর্বাত্মক প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখতে হবে: রাষ্ট্রপতি

জাতীয়, 18 December 2023, 92 Views,

ডেস্ক রিপোর্ট :
বিচারপ্রার্থীরা যাতে দ্রুত ন্যায় বিচার পায়, সে লক্ষে সংশ্লিষ্ট সবাইকে সর্বাত্মক প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখার আহ্বান জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. সাহাবুদ্দিন। তিনি বলেন, বিচারিক কর্মকাণ্ডে তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহার মামলা নিষ্পত্তিতে যুগান্তকারী পরিবর্তন এনেছে। আমি আশা করব, এখন থেকে ‘জাস্টিস ডিলেইড, জাস্টিস ডিনায়েড’ প্রবাদটি আমাদের বিচার বিভাগে উদাহরণ হিসেবে আর ব্যবহৃত হবে না।

আজ ১৮ ডিসেম্বর সোমবার ‘বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট দিবস’ উপলক্ষে সুপ্রিম কোর্টের ইনার গার্ডেনে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে রাষ্ট্রপতি এসব কথা বলেন। এ সময় তিনি মামলা নিষ্পত্তির পর রায়ের কপির জন্য যেন বিচারালয়ের বারান্দায় ঘুরতে না হয়, সে ব্যাপারেও সবাইকে যত্নবান হওয়ার পরামর্শ দেন।

রাষ্ট্রপতি আশা করেন, সুপ্রিম কোর্ট ন্যায়বিচার প্রাপ্তিতে ও জনগণের আশা-আকাঙ্খা পূরণের মাধ্যমে ৩০ লাখ শহিদের রক্তে লেখা সংবিধানের যথাযথ মর্যাদা নিশ্চিত করবেন। অমর শহিদের রক্তে লেখা এই সংবিধান রাষ্ট্র পরিচালনা ও বাঙালির অধিকার আদায়ের যেমন অনন্য দলিল, তেমনি বিশ্বের নিপীড়িত-নির্যাতিত মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠায়ও অনুপ্রেরণার উৎস হিসেবে মুক্তির পথ দেখাবে।

আইনজীবীদের বিচার ব্যবস্থার অপরিহার্য অংশ উল্লেখ করে সুপ্রিম কোর্টের সাবেক এই আইনজীবী বলেন, আইনজীবীদের সহায়তা ছাড়া বিচারের কাজ কিছুতেই অগ্রসর হতে পারে না। বিচার কাজে বেঞ্চ ও বারের মধ্যে সমন্বয় ও সহযোগিতা খুবই জরুরি। আইন, নির্বাহী ও বিচার- রাষ্ট্রের এই ৩ অঙ্গের মধ্যে সমন্বয় ও সহযোগিতা রাষ্ট্র পরিচালনায় খুবই অপরিহার্য বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

অবসরপ্রাপ্ত সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ হিসেবে অতীত অভিজ্ঞতা তুলে ধরে রাষ্ট্রপতি বলেন, সুপ্রিম কোর্ট সংবিধানের রক্ষক এবং চূড়ান্ত ব্যাখ্যা প্রদানকারী। সুপ্রিম কোর্টের জুডিসিয়াল রিভিউ’র ক্ষমতা রয়েছে। কিন্তু এই গুরুদায়িত্ব পালন অত্যন্ত সতর্কতার সঙ্গে করতে হবে। সুপ্রিম কোর্টই রায়ের মাধ্যেম অসাংবিধানিক উপায়ে রাষ্ট্র ক্ষমতা দখল অবৈধ ঘোষণা করেছেন।

অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেন, বর্তমানে বিচার বিভাগের গুরুদায়িত্ব হচ্ছে, দীর্ঘদিনের পুঞ্জিভূত মামলাজট নিরসন করা। এই জট নিরসন করতে পারলে বিচারপ্রার্থী মানুষকে যেমন দ্রুত ন্যায়বিচার প্রদান করা সম্ভব হবে, তেমনি বঙ্গবন্ধুর সুপ্রিম কোর্ট প্রতিষ্ঠার উদ্দেশ্যও সফল হবে। সর্বোপরি বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বাস্তবায়িত হবে।

তিনি আরও বলেন, বিচারের বাণী এখন আর নিভৃতে কাঁদে না। সে ব্যবস্থা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার করে দিয়েছে। আইনগত সহায়তা দিয়ে দরিদ্র-অসহায় মানুষদেরও তিনি ন্যায়বিচার পাওয়ার ব্যবস্থা করে দিয়েছেন।

সভাপতির বক্তৃতায় প্রধান বিচারপতি ওবায়দুল হাসান বলেন, দুর্নীতি নির্মূল, বিচার ব্যবস্থায় গতিশীলতা আনয়ন, গবেষণামূলক পদক্ষেপ গ্রহণ, বিচার বিভাগীয় কর্মকর্তা-কর্মচারীদের পেশাগত মানোন্নয়ন এবং প্রয়োজনীয় ভৌত অবকাঠামো নির্মাণে সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন নানা পদক্ষেপ জোরদার করেছে।

তিনি বিপুল সংখ্যক মামলা নিষ্পত্তিতে বিচার বিভাগের সক্ষমতা সংকুচিত হওয়া এবং এ সমস্যা সমাধানের জন্য পর্যাপ্ত বিচারক নিয়োগ দেওয়ার পাশাপাশি বড় ধরনের আইনি সংস্কারের গুরুত্বের কথা ব্যক্ত করেন। উচ্চ আদালত ও অধস্তন আদালতে বিচারক সংকটের কথা তুল ধরে প্রধান বিচারপতি পর্যাপ্ত বিচারক নিয়োগের জন্য রাষ্ট্রপতির প্রতি অনুরোধ জানান।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন সুপ্রিম কোর্ট জাজেস কমিটির সভাপতি ও আপিল বিভাগের বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম, অ্যাটর্নি জেনারেল এএম আমিন উদ্দিন, সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি মো. মোমতাজ উদ্দিন ফকির। অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রপতির নেতৃত্বে সুপ্রিম কোর্টের স্মারক গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন করা হয়।

এদিকে ‘সুপ্রিম কোর্ট দিবস ও সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি দিবস’ পালন করেছে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি। এ উপলক্ষে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন প্রধান বিচারপতি ওবায়দুল হাসান।

সমিতির সভাপতি মো. মোমতাজ উদ্দিন ফকিরের সভাপতিত্ত্বে সভায় আরও বক্তব্য দেন আপিল বিভাগের বিচারপতি এম ইনয়াতুর রহিম, বিচারপতি আবু জাফর সিদ্দিকী, বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেন সেলিম প্রমুখ। সভা সঞ্চালনা করেন সমিতির সম্পাদক আবদুন নূর দুলাল।