আশুগঞ্জে দুই শতাধিক পরিবার পেল ঈদের বাজার

আশুগঞ্জ, 2 April 2024, 77 Views,

চলারপথে রিপোর্ট :

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার আশুগঞ্জে বিভিন্ন শ্রেণিপেশার ২ শতাধিক পরিবারের মাঝে বিনামূল্যে ঈদের বাজার বিতরণ করা হয়েছে।

সোমবার দুপুরে উপজেলার লালপুর ইউনিয়নের সূর্য কুমার উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে এই ঈদের বাজার বিতরণ করা হয়। লালপুর মানব কল্যাণ যুব সংঘের ৬ষ্ঠ বর্ষে পদার্পণ উপলক্ষে আয়োজিত ঈদের বাজারে প্রধান অতিথি ছিলেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ (সরাইল-আশুগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য মো. মঈন উদ্দিন মঈন।

ঈদের বাজার হিসেবে নতুন কাপড়, সেমাই, চিনি, দুধ, কিসমিস, মুরগি সহ নানান ধরনের পণ্যে ভরা একটি করে ব্যাগ অসহায়, হতদরিদ্র ও ছিন্নমূল ২’শ পরিবারের মাঝে বিতরণ করা হয়েছে।

অনুষ্ঠানে লালপুর মানব কল্যাণ যুব সংঘের সভাপতি মো. ফারুক হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উদ্বোধক ছিলেন, লালপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. মোর্শেদ মাষ্টার, বিশেষ অতিথি ছিলেন সংসদ সদস্য মো. মঈন উদ্দিন মঈনের সহধর্মিনী কামরুন নাহার, আশুগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আতাউর রহমান কবির, লালপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. খলিলুর রহমান, আশুগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সভাপতি মো. মোজাম্মেল হক, সাবেক সাধারণ সম্পাদক আল মামুন, লালপুর এস কে দাস চৌধুরী উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মো. মইনুল ইসলাম, ম্যানেজিং কমিটির সদস্য বাকের আহমেদ খান প্রমুখ।

Leave a Reply

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় সর্বজনীন পেনশন স্কিম উদ্বুদ্ধকরণ কর্মশালা

চলারপথে রিপোর্ট : ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ সেলিম Read more

আখাউড়ায় সড়কে পাথর রাখায় ট্রাক খাদে,…

চলারপথে রিপোর্ট : ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার আখাউড়ায় নির্মীয়মাণ একটি সেতুর বিকল্প Read more

অবৈধ ভাবে মাটি কাটার দায়ে দুজনকে…

চলারপথে রিপোর্ট : ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার আখাউড়ায় ভেকু দিয়ে কৃষি জমি Read more

সরাইলে প্রীতি ক্রিকেট টুর্ণামেন্ট অনুষ্ঠিত

চলারপথে রিপোর্ট : ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সরাইল উপজেলার কাটানিশার গ্রামে গতকাল Read more

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আন্তর্জাতিক শব্দ সচেতনতা দিবস উদযাপিত

চলারপথে রিপোর্ট : আজ ২৪ এপ্রিল ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলায় আন্তর্জাতিক শব্দ Read more

বাঞ্ছারামপুর উপজেলা নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন…

চলারপথে রিপোর্ট : তৃতীয় ধাপে অনুষ্ঠিতব্য ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বাঞ্ছারামপুর উপজেলা Read more

পিকআপ ভ্যানের বডিতে মিলল ৪০ কেজি…

চলারপথে রিপোর্ট : ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৪০ কেজি গাঁজাসহ একজনকে আটক করেছে Read more

থাইল্যান্ড পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ছয়দিনের সফরে থাইল্যান্ডে পৌঁছেছেন। Read more

লোহিত সাগরে নৌকা ডুবে ৩৩ জন…

অনলাইন ডেস্ক : লোহিত সাগরের জিবুতি উপকূলে অভিবাসীদের বহনকারী একটি Read more

বাংলাদেশ সফরে আসছে জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট দল

অনলাইন ডেস্ক : ৫ ম্যাচের টি-২০ সিরিজ খেলতে বাংলাদেশ সফরে Read more
ফাইল ছবি

২০২৫ থেকে এসএসসি পরীক্ষা হবে ৫…

অনলাইন ডেস্ক : নতুন শিক্ষাক্রম অনুযায়ী ২০২৫ সালে এ পরীক্ষা Read more
ফাইল ছবি

থাইল্যান্ডের পথে প্রধানমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক : ছয় দিনের সরকারি সফরে থাইল্যান্ডের ব্যাংককে যাচ্ছেন Read more

নিখোঁজ ভাই-বোনকে পাওয়া গেছে

আশুগঞ্জ, 20 November 2023, 247 Views,

চলারপথে রিপোর্ট :
দোকান থেকে দিয়াশলাই আনতে গিয়ে ফাতেমা ও মঈন উদ্দিন নামের দুই ভাই-বোন নিখোঁজের ১০ ঘণ্টা পর উদ্ধার করেছে পুলিশ।

আজ ২০ নভেম্বর সোমবার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে আশুগঞ্জ উপজেলার তারুয়ার শালুক পাড়া বাজারের সামনে থেকে নিখোঁজ শিশুদের উদ্ধার করে সদর মডেল থানার পুলিশ। এর আগে সকাল ৭টার দিকে মধ্যপাড়া শান্তিবাগ এলাকার পোয়া পুকুরের উত্তর পাড় থেকে দুই শিশু নিখোঁজ হয়।

উদ্ধারকৃত শিশু ফাতেমা ও মঈন উদ্দিন শান্তিবাগ মহল্লার পোয়া পুকুরের উত্তর পাড় এলাকার কাউসার মিয়ার সন্তান।

নিখোঁজ শিশুদের উদ্ধারের বিষয়টি সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আসলাম হোসাইন নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, সোমবার বিকেলে আশুগঞ্জ উলজেলার তারুয়া ইউনিয়নের তারুয়া গ্রামের শালুক পাড়া বাজারে একটি গাড়ি থেকে দুই শিশুকে ফেলে চলে যায় অজ্ঞাত ব্যক্তিরা। পরে স্থানীয় মেম্বারের মাধ্যমে শিশুদের খোঁজ পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয় এবং শিশুদের উদ্ধার করি। অল্প কিছুক্ষণের মধ্যে শিশুদের তাদের বাবা-মায়ের কাছে বুঝিয়ে দেওয়া হবে।

তিনি আরো জানান, সকালে ৭টার দিকে মধ্যপাড়া শান্তিবাগ এলাকার পোয়া পুকুরের উত্তর পাড় হাজী মোহাম্মদ আলী ভবনের রাস্তার পাশের মুদি মালের দোকানে যাওয়ার পর শিশুরা নিখোঁজ হয়। পরে শিশুদের খোঁজে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছিল। পুলিশ শিশুদের উদ্ধারের কাজ শুরু করে। পরবর্তীতে শিশুদের আশুগঞ্জ উপজেলা থেকে উদ্ধার করি।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় উপনির্বাচনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী পরিবর্তন

আশুগঞ্জ, জাতীয়, রাজনীতি, সরাইল, 3 January 2023, 2044 Views,
স্টাফ রিপোর্টার:
ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ (সরাইল-আশুগঞ্জ) আসনের সংসদ উপনির্বাচনে জাতীয় পার্টির (লাঙ্গল) প্রার্থী পরিবর্তন করে নতুন প্রার্থী ঘোষণা করা হয়েছে। আজ মঙ্গলবার জাতীয় পার্টির মহাসচিব মুজিবুল হক স্বাক্ষরিত এক চিঠি সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। এ আসনে নির্বাচন করার জন্য তিনিসহ আরও দুজন আজ মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন। এর আগে গত ২৫ ডিসেম্বর এ আসনের উপনির্বাচনে জাতীয় পার্টির অতিরিক্ত মহাসচিব রেজাউল ইসলাম ভূঞার নাম ঘোষণা করেছিল জাতীয় পার্টি। ঘোষণা করা নতুন প্রার্থী আবদুল হামিদ সরাইল উপজেলার চুন্টা গ্রামের বাসিন্দা। তিনি জাতীয় পার্টির ছাত্রসংগঠন জাতীয় ছাত্রসমাজের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও সভাপতি। বর্তমানে তিনি কেন্দ্রীয় জাতীয় পার্টির যুগ্ম মহাসচিব। তবে এ আসনে জাতীয় পার্টি–সমর্থিত আরেক প্রার্থী রেজাউল ইসলামের শ্বশুর পার্টির সাবেক চেয়ারম্যান প্রয়াত হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের সাবেক উপদেষ্টা জিয়াউল হক মৃধা স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করবেন।
রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, গত সোমবার পর্যন্ত রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে জাতীয় পার্টির রেজাউল ইসলাম, জাকের পার্টি, ন্যাশনাল পিপলস পার্টিসহ ১২ জন মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন। মঙ্গলবার নতুন করে আরও দুজন মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন। তাঁরা হলেন জাতীয় পার্টি থেকে নতুন করে মনোনয়ন পাওয়া আবদুল হামিদ ভাসানী ও স্বতন্ত্র প্রার্থী স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ শাহজাহান আলম।
গতকাল মঙ্গলবার নতুন প্রার্থী মনোনয়ন দেওয়ার বিষয়ে জাতীয় পার্টির মহাসচিব সংসদ সদস্য মুজিবুল হক স্বাক্ষরিত এক চিঠি সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার জাতীয় পার্টির উপনির্বাচনের বোর্ডের সিদ্ধান্তে সংসদ উপনির্বাচনে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী হিসেবে আবদুল হামিদ ভাসানীকে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে।
জাতীয় পার্টির সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য রেজাউল ইসলাম ভূঞা বলেন, ‘দল এ আসনের সংসদীয় উপনির্বাচনে প্রার্থী পরিবর্তন করেছে। কেন পরিবর্তন করেছে, সেটি দলই ভালোই বলতে পারবে। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘দলীয় মনোনয়ন না পেলে নির্বাচন করব কীভাবে। তবে দল যাঁকে মনোনয়ন দিয়েছে, আমরা তাঁর পক্ষেই নির্বাচন করব।’
জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম মহাসচিব আবদুল হামিদ ভাসানী বলেন, ‘আমি ছাত্রসংগঠন জাতীয় ছাত্রসমাজের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও সভাপতি ছিলাম। আমি দলীয় প্রতীক পেয়েছি। দলীয় প্রতীকে নির্বাচন করব। জিয়াউল হক মৃধা ও রেজাউল ইসলাম আমাকে নির্বাচনে সহায়তা করবেন বলে কথা দিয়েছেন।’
তবে এ বিষয়ে জাতীয় পার্টির আরেক নেতা জিয়াউল হক মৃধা বলেন, ‘এখানে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির দলীয় কোনো প্রার্থী নেই। রওশন এরশাদ আমাকে দলীয় মনোনয়ন দিতে চাইছেন। কিন্তু দলীয় মনোনয়ন পেতে আইনগত জটিলতা রয়েছে। তাই এখানে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করব।’ তিনি আরও বলেন, ‘এ আসনের সাধারণ মানুষ আমাকে প্রার্থী হিসেবে চাইছে। তাই নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছি। দল যাঁকেই মনোনয়ন দিয়ে থাকুক না কেন, আমি স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করব। আমি জাতীয় পার্টির নতুন প্রার্থীর সঙ্গে কোনো কথা বলিনি।’
একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এ আসনে নৌকা প্রতীকের কোনো প্রার্থী ছিল না। মহাজোটের প্রার্থী ছিলেন রেজাউল ইসলাম ভূঞা। স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সহসভাপতি মঈনউদ্দিন মঈন ও জিয়াউল হক মৃধা। তবে মহাজোটের প্রার্থী রেজাউল ইসলাম ভূঞাও শেষ পর্যন্ত প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেননি। নির্বাচনের দুই দিন আগে তিনি তাঁর শ্বশুর জিয়াউল হক মৃধার সম্মানে প্রতিদ্বন্দ্বিতা থেকে সরে দাঁড়ান।
প্রসঙ্গত, গত বৃহস্পতিবার রাতে বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টার পদ থেকে পদত্যাগ করে দলীয় পদত্যাগপত্র জমা দেন এই আসনের বিএনপির সংসদ সদস্য আবদুস সাত্তার ভূঁইয়া। এর আগে দলীয় সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ১১ ডিসেম্বর ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনের সংসদ সদস্য পদ থেকে পদত্যাগ করেন পাঁচবারের সংসদ সদস্য প্রবীণ এই নেতা। নির্বাচন কমিশনের তফসিল অনুযায়ী আগামী ১ ফেব্রুয়ারি এই শূন্য আসনে উপনির্বাচন হবে। দলীয় কোনো প্রার্থী ঘোষণা না করে আসনটি উন্মুক্ত রেখেছে আওয়ামী লীগ।

‘নিখোঁজ’ হওয়ার কারণ জানালেন স্বতন্ত্র প্রার্থী আসিফ

আশুগঞ্জ, 3 February 2023, 693 Views,

আশুগঞ্জ প্রতিনিধি : ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ (সরাইল-আশুগঞ্জ) আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী আবু আসিফ আহমেদ বাসায় ফিরেছেন। ২ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার ৫টার দিকে তিনি বাসায় ফেরেন।

২ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা পৌনে ৬টার দিকে সাংবাদিকরা তার বাসায় যান। এ সময় সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘প্রথম থেকে আমার কাছে নির্বাচন অগোছালো মনে হয়েছিল। নির্বাচনের সময় ঘনিয়ে আসার সঙ্গে সঙ্গে আমি বেশি চাপ নিতে পারছিলাম না। বেশি চাপ অনুভব করাতে আমি নির্বাচন থেকে সরে গেছি। চাপ নিয়ে আমি থাকতে পারব না। এ জন্য আমি নির্বাচন ছাইড়া সইরা গেছি।’

আবু আসিফ বলেন, ‘চাপ নিতে পারছিলাম না। আমি মানসিকভাবে ভেঙে গিয়েছিলাম। নির্বাচন শেষ হয়েছে, আমি চলে এসেছি।’ কোথায় ছিলেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমি ছিলাম আমার একটি জায়গায়।’ সরে দাঁড়ানোর জন্য কেউ কোনো চাপ বা ভয়ভীতি দেখিয়েছে কিনা, জানতে চাইলে স্ত্রী মেহেরুননিসা মেহেরীন তাকে থামিয়ে দেন।

সন্ধ্যায় আবু আসিফ নিজ কক্ষে বিছানায় কম্বল জড়িয়ে শুয়েছিলেন। কিছুটা অসুস্থ দেখাচ্ছিল তাকে। সেই সময় স্ত্রী মেহেরুননিসা, শ্যালক সায়ায়েত সুমন, দারোয়ান ইছু মিয়াসহ অনেকেই তার কক্ষে ছিলেন।

আসিফের স্ত্রী মেহেরুননিসা মেহেরীন বলেন, ‘আমি আশুগঞ্জের বাসায় ছিলাম। বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টা থেকে দুপুর ১২টার দিকে জানতে পারি, স্বামী ঢাকার বসুন্ধরার বাসায় ফিরেছেন। আমাকে ফোন দেওয়ার পর ঢাকায় চলে যাই। স্বামীকে নিয়ে বিকাল ৫টায় আশুগঞ্জে চলে আসি। তিনি অসুস্থ বোধ করছেন।’

মেহেরুননিসা বলেন, নিখোঁজ হওয়ার তিন দিন আগে থেকে তিনি চাপ অনুভব করা শুরু করেন। নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছিলেন। তাই চাপমুক্ত থাকতে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ান। এক কাপড়ে গেছেন, এক কাপড়েই ফিরেছেন। এতটাই হতাশায় ভুগছিলেন তিনি, নিজের মুঠোফোনটিও বাসায় রেখে চলে যান।

নিরাপত্তাহীনতার কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন, তিনি ভয় পাচ্ছিলেন। নিজে নিজে ভয় পাচ্ছিলেন। অন্য কোনো কারণ নেই। কোনো সংস্থা বা কেউ ভয় দেখিয়েছে কিনা, জানতে চাইলে তিনি বলেন, মানসিক চাপ থেকে ভয় পাচ্ছিলেন। নিখোঁজের দু’দিন আগেও তিনি কাজে বের হননি। মানসিক চাপে থাকলে মানুষ যেমন অসুস্থ থাকে, তেমনই এখন তার অবস্থা।

এর আগে দুপুরে পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শাখাওয়াত হোসেন মেহেরুননিসার বরাত দিয়ে আসিফের সন্ধান পাওয়ার কথা জানান। তিনি বলেছিলেন, আসিফের স্ত্রী জানিয়েছেন – তিনি রাজধানীর বসুন্ধরা এলাকায় তাদের বাসায় আছেন। সন্ধ্যার মধ্যে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় পৌঁছাবেন।

আবু আসিফ আহমেদ আশুগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান। ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ উপনির্বাচনে বেসরকারিভাবে জয়ী বিএনপির দলছুট নেতা আবদুস সাত্তার ভূঁইয়ার প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন তিনি।

এর আগে গত ২৭ জানুয়ারি রাত সাড়ে ১১টার পর থেকে আবু আসিফের খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না। মুঠোফোন বাসায় চার্জারে রেখে বের হন তিনি। এর পর থেকে তার সঙ্গে পরিবারের লোকজন যোগাযোগ করতে পারছিলেন না। নিখোঁজের ৯২ ঘণ্টা পর তার সন্ধানে রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসক মো. শাহগীর আলমের কাছে লিখিত আবেদন করেছিলেন তার স্ত্রী মেহেরুননিসা।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ (সরাইল-আশুগঞ্জ) আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী মঈন উদ্দিনের জয়

আশুগঞ্জ, সরাইল, 8 January 2024, 396 Views,

চলারপথে রিপোর্ট :
দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ (সরাইল-আশুগঞ্জ) আসনে বেসরকারি ফলাফল ঘোষণা করা হয়েছে। এ ফলাফলে জয়ী হয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী কলারছড়ি প্রতীকের মোঃ মঈন উদ্দিন। তিনি ৮৪ হাজার ৬৭ ভোট পেয়ে জয়ী হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি আরেক স্বতন্ত্র প্রার্থী অ্যাড: মো: জিয়াউল হক মৃধা ঈগল প্রতীকে পেয়েছেন ৫৫ হাজার ৪৩১ভোট। তৃণমূল বিএনপি মাইনুল হাসান সোনালী আঁশ প্রতীকে ৪৩১৮ ভোট, জাতীয় পার্টি মো: রেজাউল ইসলাম ভূঞা লাঙ্গল প্রতীকে ৩৪০৮ ভোট।

৭ জানুয়ারি রবিবার রিটার্নিং কর্মকর্তা মোহাম্মদ হাবিবুর রহমান তার কার্যালয়ে এ ফলাফল ঘোষণা করেন। নির্বাচনে মোট ৩৮ দশমিক ৮১ শতাংশ ভোট পড়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি। এর আগে সকাল ৮টায় শুরু হওয়া ভোট শেষ হয় বিকেল ৪টায়। এরপর শুরু হয় গণনা।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনে মোট ভোটার ৪ লাখ দশ হাজার ৭১ জন। আসনটির ১৩২ ভোট কেন্দ্রের ৮৫৯টি ভোটকক্ষে ব্যালটের মাধ্যমে ভোটগ্রহণ করা হয়।

সরাইল-আশুগঞ্জ থেকে আবদুস সাত্তার ভূইয়াকে এলাকায় অবাঞ্চিত ঘোষনা

আশুগঞ্জ, রাজনীতি, সরাইল, 3 January 2023, 1515 Views,
স্টাফ রিপোর্টার:
আগামী ১ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিতব্য ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২-(সরাইল-আশুগঞ্জ) আসনের উপ-নির্বাচনে অংশ নিতে একজন স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করার পর জাতীয় সংসদ ও বিএনপি থেকে পদত্যাগ করা উকিল আবদুস সাত্তার ভূইয়াকে বিএনপি থেকে বহিষ্কার ও এলাকায় অবাঞ্চিত ঘোষনা করা হয়েছে। গত রোববার রাতে তাকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয় ও গতকাল সোমবার দুপুরে সরাইল ও আশুগঞ্জ উপজেলায় পৃথক সংবাদ সম্মেলন করে তাকে সরাইল ও আশুগঞ্জে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করে সরাইল ও আশুগঞ্জ উপজেলা বিএনপি। এর আগে গত রোববার বিকেলে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা নির্বাচন অফিস থেকে উকিল আবদুস সাত্তার ভূইয়ার পক্ষে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেন সাদ মোহাম্মদ রশিদ নামের তাঁর এক আত্মীয়। জেলা নির্বাচন অফিসার মোঃ জিল্লুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। একজন স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবেই উকিল আবদুস সাত্তার ভূইয়া উপ-নির্বাচনে অংশ নিবেন।
এদিকে সোমবার দুপুরে সরাইল উপজেলা বিএনপি এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে উকিল আবদুস সাত্তার ভূইয়াকে সরাইলে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করে। একই সময়ে আশুগঞ্জ উপজেলা বিএনপির পক্ষ থেকেও সংবাদ সম্মেলন করে উকিল আবদুস সাত্তার ভূইয়াকে আশুগঞ্জে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করে। উকিল আবদুস সাত্তার ভূইয়া এই আসন থেকে ৫ বার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন। সর্বশেষ তিনি গত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এই আসন থেকে বিএনপির প্রার্থী হিসেবে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। দলীয় সিদ্ধান্তে গত ১১ ডিসেম্বর তিনি বিএনপির অন্যান্য এমপিদের সাথে জাতীয় সংসদ থেকে পদত্যাগ করেন। জাতীয় সংসদ থেকে পদত্যাগের ১৮দিন পর তিনি গত বৃহস্পতিবার বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টার পদ থেকে পদত্যাগ করেন।
বিএনপির নেতা-কর্মীদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, উকিল আবদুস সাত্তার ভূইয়া ১৯৭৯ সালে প্রথম তৎকালীন কুমিল্লা -১ (নাসিরনগর ও সরাইলের একাংশ) বর্তমানে ব্রাহ্মণবাড়িয়া -১ আসন থেকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। পরে তিনি বিএনপিতে যোগদান করেন। তিনি ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২-(সরাইল-আশুগঞ্জ) আসন থেকে ১৯৯১ সালে, ১৯৯৬ সালে অনুষ্ঠিত ১৫ ফেব্রুয়ারির নির্বাচনসহ দুটি নির্বাচনে ও সর্বশেষ ২০১৮ সালে অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী হিসেবে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। তিনি দীর্ঘ ২৭ বছর ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা বিএনপির সভাপতি ছিলেন।
২০০১ সালে অনুষ্ঠিত নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে উকিল আবদুস সাত্তার ভূইয়া দলের মনোনয়ন পাননি। ওই আসন থেকে চারদলীয় জোটের শীর্ষ নেতা ও ইসলামী ঐক্যজোটের তৎকালীন মহাসচিব মুফতি ফজলুল হক আমিনীকে মনোনয়ন দেয়া হয়। নির্বাচনে বিএনপির নেতৃত্বাধীন চারদলীয় জোট বিজয়ী হয়ে সরকার গঠন করলে উকিল আবদুস সাত্তার ভূইয়াকে টেকনোক্রেট কোটায় প্রতিমন্ত্রী করা হয়।
এ ব্যাপারে সরাইল উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট নুরুজ্জামান লস্কর তপু বলেন, সোমবার দুপুরে সরাইল উপজেলা বিএনপির পক্ষ থেকে এক সংবাদ সম্মেলন করে সরাইল উপজেলায় উকিল আবদুস সাত্তার ভূইয়াকে অবাঞ্চিত ঘোষনা করা হয়েছে। তিনি বলেন, আশুগঞ্জ উপজেলা বিএনপির পক্ষ থেকেই সোমবার দুপুরে সংবাদ সম্মেলন করে আশুগঞ্জ উপজেলায় উকিল আবদুস সাত্তার ভূইয়াকে অবাঞ্চিত ঘোষনা করা হয়।

এ ব্যাপারে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা বিএনপির আহবায়ক জিল্লুর রহমান বলেন, আবদুস সাত্তার ভূইয়াকে দল থেকে বহিস্কারের বিষয়টি কেন্দ্র থেকে আমাদেরকে জানানো হয়েছে। দলের স্বার্থবিরোধী কর্মকান্ডের কারনেই দল থেকে তাকে বহিস্কার হয়েছে। তিনি আরো বলেন, বিএনপি উকিল সাত্তার ভূইয়ার জন্য দল কম করেনি। তিনি বিএনপি থেকে ৫ বার এমপি ও প্রতিমন্ত্রী হয়েছেন। বর্তমান সময়ে উকিল আবদুস সাত্তার ভূইয়া বিএনপির সাথে বেঈমানি করেছেন। তার কোন আদর্শ নেই। তিনি নষ্ট হয়ে গেছেন।